শ্রীনগরে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা,৭৭ মন্ডপে হবে শারদীয় উৎসব

প্রকাশিত: ৬:২১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২১

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা। প্রতীমা তৈরীসহ পূজার অনুষঙ্গিক বিভিন্ন কাজ নিয়ে পাল পাড়াগুলোতে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন শিল্পীরা। এসব প্রতীমা মন্ডপে মন্ডপে স্থাপন করাসহ রং ও নানা সাজসজ্জা করছেন তারা। শিল্পীদের নিপুন হাতে রং, তুলির আচরে ফুঁটে উঠছে প্রতীমার নজরকারা সৌন্দর্য। এছাড়া পূজা মন্ডপ ও বাড়ির আঙ্গিণা সাজানো হচ্ছে নানা রুপে। কোথাও কোথাও করা হচ্ছে বিশেষ লাটিং ব্যবস্থা। ১১ অক্টোবর ষষ্ঠী পূজার মধ্যে দিয়ে শুরু হবে হিন্দু সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় শারদীয় দুর্গোৎসব। তাই দেবী দুর্গা মা’র প্রতীমা তৈরীর কাজে মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, ফরিদপুর, কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কয়েকশত অভিজ্ঞ মৃৎশিল্পী প্রতীমা তৈরীর কাজে এই অঞ্চলে আসেন। শারদীয় উৎসবকে সামনে রেখে এসব মৃৎশিল্পীদের কদর বেড়ে যায়। এ বছর শ্রীনগর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে মোট ৭৭টি মন্ডপে শারদীয় উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। শান্তিপূর্ণভাবে শারদীয় উৎসব উদযাপন ও সার্বিক নিরাপত্তার লক্ষ্যে শ্রীনগর উপজেলা প্রশাসন ও আইন-শৃংখলা বাহিনী মাঠে কাজ করছেন।
সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন পূজা মন্ডপে এরই মধ্যে প্রতীমা স্থাপন করার পাশাপাশি সাজসজ্জা করা হয়েছে। রং শিল্পীর তুলির ছোঁয়ায় এসব প্রতীমার পরিপূর্ণতা ফুঁটে উঠছে। লক্ষ্য করা গেছে, মৃৎশিল্পীর পাশাপাশি ডেকোরেটর মিস্ত্রীরা মন্ডপজুড়ে গেইট, প্যান্ডেল ও লাটিংসহ অন্যান্য কাজকর্ম শুরু করছেন। এরই মধ্যে শ্রীনগর থানা পুলিশ পূজা মন্ডপগুলোর সার্বিক নিরাপত্তায় ও নাশকতা এড়াতে পুলিশ প্রশাসনের জরুরী ফোন নম্বর সম্মিলিত ফেস্টুন-ব্যানার সাটিয়ে দিচ্ছেন।
শ্রীনগর পোদ্দার পাড়ায় শ্রী শ্রী দুর্গা মন্ডপের সভাপতি চৈতন্য পোদ্দার (৬৫) বলেন, প্রায় ২৫৯ বছর ধরে পোদ্দার পাড়ায় শারদীয় দুর্গা পূজার উৎসব হয়ে আসছে। এ বছরও উৎসবকে ঘিরে সকল প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। এ সময় স্বপন পাল (৩৫) নামে এক মৃৎশিল্পী বলেন, মানিকগঞ্জ থেকে তিনি একাজের জন্য শ্রীনগরে আসেন। তিন মাস ধরে সুশিল চন্দ্র পালের অধিনে মাসিক ৩৫ হাজার টাকা বেতনে প্রতীমা তৈরীর কাজ করছি।
শ্রীনগর বাজার সংলগ্ন পাল পাড়ার অভিজ্ঞ মৃৎশিল্পী শ্রী সুশিল চন্দ্র পাল (৭২) বলেন, পূর্ব পুরুষদের পেশাগত সূত্র ধরেই নিজেকে এই পেশায় প্রতিষ্ঠিত করেছি। এই বয়সেও প্রতীমা তৈরীর কাজ করছি। এ বছর ১০টি দুর্গার প্রতীমার অর্ডার পেয়েছি। একাজের জন্য দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে অতিরিক্ত ৬ জন মৃৎশিল্পী আনা হয়েছে। মাসিক বেতনে মৃৎশিল্পীরা কাজ করেন। কুমিল্লার লাকসাম এলাকার একটি দুর্গা মন্ডপের জন্য প্রতীমা তৈরীর অর্ডার হয়েছে। প্রতীমাটির মূল্য ধরা হয়েছে ১ লাখ টাকা। এছাড়াও শ্রীনগর সদর ইউনিয়নে ৩টি ও উপজেলার অন্যান্য ইউনিয়নের দুর্গা মন্ডপের জন্য ৬টি প্রতীমা প্রস্তুত করা হয়েছে।
সুশিল চন্দ্র পালের পুত্র শংকর চন্দ্র পাল (৩৫) বলেন, বাবার কাজে সহযোগিতা করেন তিনি। প্রতীমার কাজ প্রায় শেষ। এখন শুধু তৈরীকৃত প্রতীমায় রং ও সাজসজ্জার কাজ করা হচ্ছে। এরই মধ্যে পরবর্তী লক্ষীপূজা উপলক্ষে বিভিন্ন আকারের প্রতীমা তৈরীর কাজে ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন জানান তারা। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলার শ্রীনগর, ষোলঘর, শ্যামসিদ্ধি, হাঁসাড়া, তন্তর এলাকারসহ বিভিন্ন পাল পাড়ায় মৃৎশিল্পীরা প্রতীমা তৈরীতে দিনরাত সমান তালে কাজ করছেন।
শ্রীনগর উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি স্বপন কুমার মোদক জানান, উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে বিভিন্ন এ বছর ৭৭টি দুর্গা মন্ডপে শারদীয় উৎসব অনুষ্ঠিত হতে হবে। শারদীয় উৎসব শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি আইন-শৃংখলা বাহিনীর সাথে বৈঠক হয়েছে। তারা সার্বিকভাবে সহযোগিতা করবেন। পূজা উদযাপন কমিটির পক্ষ থেকে সবাইকে শারদীয় শুভেচ্ছা জানান তিনি।

শ্রীনগর,মুন্সীগঞ্জ
০৭/১০/২১ইং