বসানো হল পদ্মা সেতুর ৪০ তম স্প্যান: আর মাত্র একটি স্প্যানে ১৫০ মিটার যোগ হলেই দৃশ্যমান হবে পুরোপুরি পদ্মা সেতু।

প্রকাশিত: ১২:৪০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৪, ২০২০

শহীদ শেখ (পাখি):-মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:আজ বসানো হয়েছে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তের মাঝ নদীতে সেতুর ৪০ তম স্প্যান”২-ই” ।আর এটি সেতুর মাঝ নদীর ১১ ও ১২ নাম্বার পিলারের উপর বসানো হয়।যার ফলে এখন মুল সেতুর দৃশ্যমান হলো ৬ হাজার মিটার অর্থাত ৬ কিলোমিটার।আর মাত্র একটি স্প্যানে ১৫০ মিটার যোগ হলেই ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ পদ্মা সেতু পুরোপুরী দৃশ্যমান হবে।আর বিজয় দিবসের আগেই সেতুর বাকী ৪১ তম স্প্যান”২-এফ” ১২ ও ১৩ নাম্বার পিলারের উপর বসানো হবে। সেতু সংশ্লিস্ট সূত্রে জানাযায় স্প্যানটি বসানোর একদিন পূর্বে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা ২৫ মিনিটে ধূসর রঙ্গের ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের স্প্যানটি লৌহজংয়ের কুমারভোগ কনস্ট্রশন ইয়ার্ড থেকে ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই- বহন করে মাত্র আধা ঘন্টার মধ্যে সেতুর পিলার দুটির কাছে এসে পৌছায় ।এর পর রাতভর স্প্যানটিকে সেতুর পিলার দুটির কাছে স্প্যানটি বহনকারী ভাসমান জাহাজে ঝুলন্ত অবস্থায় রাখা হয়।পরে শুক্রবার সকাল ১১ টা ৫মিনিটের সময়ে দেশী বিদেশী প্রায় দুশো শ্রমিকের প্রচেস্টায় স্প্যানটি পুরোপুরী বসাতে সক্ষম হয় কতৃপক্ষ।কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত দোতলা আকৃতির পদ্মা সেতুর ৪২ টি পিলারের উপর ৪১ টি স্প্যান বসবে। মাত্র ৬ দিন পূর্বে সেতুর ১০ ও ১১ নাম্বার পিলারে ৩৯ তম স্প্যান ”২-ডি” বসানো হয়েছিলো ।আর গেলো দু মাসে সেতুতে সব চেয়ে বেশি ৮ টি স্প্যান বসানো হয় । এদিকে সেতুর ২৯১৭টি রোডওয়ে স্ল্যাবের মধ্যে ১২৮৫টি ও রেলওয়ের ২৯৫৯ টি স্ল্যাাবের মধ্যে ১৯৩০টি বসানো হয়েছে।২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় সেতুর অবকাঠামো।মূল সেতু নির্মাণের কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) এবং নদীশাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন। দুটি সংযোগ সড়ক ও অবকাঠামো নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের আব্দুল মোমেন লিমিটেড।