Home / জাতীয় / বেতন গ্রেড পরিবর্তনের দাবিতে রামগড়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কর্মবিরতি পালন

বেতন গ্রেড পরিবর্তনের দাবিতে রামগড়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কর্মবিরতি পালন

রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের ডাকে সারা দেশের ন্যায় রামগড় উপজেলার সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আজ ১০টা হতে ১২টা পর্যন্ত ২ ঘন্টা কর্মবিরতি পালিত হয়েছে। কর্মবিরতি চলাকালীন সকল বিদ্যালয়ে পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ ছিল।প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড বেতন স্কেল নির্ধারনের দাবীতে এই কর্মসূচী পালিত হচ্ছে।১৪ই অক্টোবর ২০১৯ তারিখ হতে ১৭ই ই অক্টোবর ২০১৯ তারিখ পর্যন্ত লাগাতার কর্মবিরতি পালন করবেন শিক্ষকরা। এই কর্মসূচিতে যদি দাবী আদায় না হয় তাহলে আগামী ২৩ অক্টোবর ২০১৯ তারিখ ঢাকা মহাসমাবেশ করা হবে এবং মহাসমাবেশ থেকে পরবর্তী আরও  কঠোর কর্মসূচী ঘোষনা করা হবে। প্রাথমিক শিক্ষকদের সকল সংগঠন ঐক্যবদ্ধভাবে এই কর্মসূচী পালন করতেছে। বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি, রামগড় উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক জনাব মোঃ ইযাকুব বলেন, আমরা দীর্ঘদিন যাবৎ  দাবী দাওয়া আদায়ে কর্মসূচী পালন করে আসতেছি। ২০১৭ সালে আমরা ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আমরা আমরন অনশনে ছিলাম।তৎকালী প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী জনাব মোস্তাফিজুর রহমান আমাদের অনশনস্থলে এসে দাবী পূরণ করা হবে বলে আশ্বাস দেন এবং অনশন ছেড়ে বিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। আমরা মন্ত্রী মহোদয়ের আশ্বাসে বিশ্বাস করে বিদ্যালয়ে ফিরে যাই। কিন্তু আমাদের দাবী পূরণ করা হয়নি। বর্তমান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জনাব জাকির হোসেন স্যারও অনেকবার বিভিন্ন জায়গায় শিক্ষকদের মধ্যে বিদ্যমান বেতন বৈষম্য দুর করবেন বলে ঘোষনা দেন। কিন্তু বাস্তবায়ন দেখছিনা। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভয়েস কলের মাধ্যমে শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দুর করার ঘোষনা দেন। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারেও বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তবুও বাস্তবায়ন হচ্ছেনা। আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারনে প্রাথমিক শিক্ষকরা সবক্ষেত্রে বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। আমরা কোমলমতি ছাত্র ছাত্রীদের পাঠদান থেকে বিরত থাকতে চাইনা কিন্তু আমাদের আর কোনো উপায় নাই।প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি, রামগড় উপজেলা শাখার সভাপতি মোঃ কাসেম আলী বলেন:- অনেকবার আশ্বাস দেয়া হয়েছে কিন্তু দাবী পূরণ হচ্ছেনা তাই আমরা হতাশ। কঠোর কর্মসূচী ছাড়া আমাদের আর কোনো পথ নাই।আমরা সকল শিক্ষক ঐক্যবদ্ধভাবে কর্মসূচী পালন করতেছি। দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের কর্মসূচী চলবে। বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি,রামগড় শাখার সভাপতি ও পাতাছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রুইম্রোচাই কার্বারী বলেন,রামগড় উপজেলার সকল সরকারি প্রাইমারি স্কুলে কর্মবিরতি পালন হচ্ছে। প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড ন্যায্য পাওনা। আমাদের শিক্ষকদের শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক করা হয়েছে। তাছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিনে দেড় বছর মেয়াদী একটা ডিপ্লোমা কোর্স করতে হয়। যোগ্যতা অনুযায়ী শিক্ষকদের ১০ম ও ১১তম গ্রেড প্রদান করার জন্য সরকারের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রীর  আমাদের আকুল আবেদন, তিনি যেন আমাদের দাবী মেনে নেন।শিক্ষকদের কর্মসূচি পালন কালে উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ে ঘুরে দেখা যায় , শিক্ষকদের কর্মবিরতির ফলে কোমলমতি ছাত্রছাত্রীরা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

About admin

Check Also

বঙ্গবন্ধুর মহিউদ্দিনের’ বিরুদ্ধে কোনো চক্রান্ত সফল হতে দিবোনা — শ্রীনগরের মোঃ জাকির হোসেনের হুশিয়ারী

 মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মহিউদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *